২০১৬ সালের ১ম সম্মেলন এর তথ্যাদি:

১. বাংলা বিভাগ অ্যালামনাই প্রথম কার্যনির্বাহী পরিষদের নির্বাচন

০৯ এপ্রিল বাংলা বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর অমৃত লাল বালা-কে আহ্বায়ক এবং প্রফেসর আবুল হাসান চৌধুরী ও প্রফেসর স্বরোচিষ সরকারকে সদস্য করে পূর্বে গঠিত নির্বাচন কমিটি এ সময় মঞ্চে আসন গ্রহণ করেন। নির্বাচন কমিটি সদ্য গৃহীত গঠনতন্ত্রের আলোকে মূল ৩টি পদে সরাসরি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে মর্মে সিদ্ধান্ত নেন। পদ ৩টি হলো- সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও কোষাধ্যক্ষ। যাঁরা এ পদে নির্বাচিত হবেন তাঁরা সম্মিলিতভাবে পরে পূর্ণাঙ্গ কার্যনির্বাহী পরিষদ গঠন করবেন। তাঁরা নির্ধারিত সময়ের মধ্যে এ ৩টি পদে নমিনেশন ফরম বিক্রির ও জমাদানের ঘোষণা দেন। সে অনুযায়ী নির্ধারিত মূল্য দিয়ে সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও কোষাধ্যক্ষ পদের ৩টি ফরম বিক্রি হয় এবং নির্ধারিত সময়ে তা জমা দেয়া হয়। উপস্থিত সদস্যদের বিপুল হর্ষধ্বনির মাঝে নির্বাচন কমিটি রাত ৮:০০ টায় নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করেন। সভাপতি পদে আপেল আবদুল্লাহ, সাধারণ সম্পাদক পদে ড. পি. এম. সফিকুল ইসলাম ও কোষাধ্যক্ষ পদে ড. অনীক মাহমুদ বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন। পূর্ণাঙ্গ পরিষদ গঠনের জন্য নব নির্বাচিত সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও কোষাধ্যক্ষকে দায়িত্ব অর্পণ করা হয় (পরবর্তীতে গঠিত পূর্ণাঙ্গ কার্যনির্বাহী পরিষদ সংযোজিত)।

২. প্রথম সম্মেলন এর দাওয়াত পত্র 

 

৩. শিক্ষক সংবর্ধনা

বাংলা বিভাগের প্রাক্তন শিক্ষকবৃন্দের সংবর্ধনা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয় ০৯ এপ্রিল বেলা ১২:৩০ টায়। সভাপতিত্ব করেন বাংলা বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. অমৃত লাল বালা। উপস্থাপনায় ছিলেন তানিয়া তাহমিনা সরকার ও আপেল আবদুল্লাহ। বাংলা বিভাগের সাবেক শিক্ষক ও প্রয়াত শিক্ষকবৃন্দের পরিবারের সদস্যদের মাঝে ক্রেস্ট প্রদান ও উত্তরীয় পরিয়ে দেয়ার মাধ্যমে তাঁদের সম্মাননা প্রদান ও শিক্ষা বিস্তারে অসামান্য অবদানের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়।

৪.কলাবিদ পুরষ্কার

০৯ এপ্রিল দুপুর ১২:৪৫ টায় বাংলা বিভাগ অ্যালামনাই পুরস্কার ‘কলাবিদ’ ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ পুরস্কার-২০১৬ বিতরণ করা হয়। পূর্ব সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সভায় কবি মহাদেব সাহা ও প্রয়াত কবি আতাউর রহমানকে এ পুরষ্কার প্রদান করা হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন প্রফেসর ড. পি. এম. সফিকুল ইসলাম। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপমহাদেশের প্রখ্যাত কথাসাহিত্যিক হাসান আজিজুল হক। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ড. অনীক মাহমুদ। প্রধান অতিথি পুরষ্কার প্রাপ্তদের প্রতিনিধিদের কাছে ২৫ হাজার করে নগদ অর্থ এবং সম্মাননা ও ক্রেস্ট হস্তান্তর করেন।

৫. সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানঃ

০৯ এপ্রিল সন্ধ্যা ৮:৩০ টা থেকে শুরু হয় ‘আবার আসিব ফিরে’ পর্ব। পর্বটি সঞ্চালনায় ছিলেন ড. মোঃ আজিজুর রহমান দীপু। এ পর্বে গম্ভীরা, শ্রুতি নাটক ‘বিবাহ বিভ্রাট’, মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক একক নাটক ‘লাল জমিন’ পরিবেশিত হয়। এরই ফাঁকে অনুষ্ঠিত হয় র‌্যাফেল ড্র। প্রখ্যাত লালনগীতি শিল্পী রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের প্রাক্তন ছাত্রী ফরিদা পারভীনের একক সংগীত পরিবেশনার মাধ্যমে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে। এরপর পরিবেশিত হয় নৈশভোজ। নৈশভোজের মাধ্যমে নতুন প্রত্যয়ে এগিয়ে যাবার অঙ্গীকার নিয়ে সমাপ্ত হয় প্র ম ঐতিহাসিক সম্মিলন।